কপাল পুরলো মুস্তাফিজের, সাথে চেন্নাইয়েরও!

কপাল পুরলো মুস্তাফিজের, সাথে চেন্নাইয়েরও!

টানা দুই জয়ে দুর্দান্তভাবে আসর শুরুর পর এবার হারের মুখ দেখল মুস্তাফিজুর রহমানের দল চেন্নাই সুপার কিংস। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা হেরে গেছে মুস্তাফিজের সাবেক দল দিল্লী ক্যাপিটালসের কাছে। অন্যদিকে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে এসে দিল্লী পেয়েছে আসরের প্রথম জয়ের দেখা।

বিশাখাপাটনামে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন দিল্লীর অধিনায়ক রিশভ পান্ট। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে দলটির সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৯১ রান। দুই ওপেনার পৃথ্বী শো ও ডেভিড ওয়ার্নার দলকে এনে দিয়েছিলেন উড়ন্ত সূচনা। নিজের প্রথম ওভারে খরুচে হলেও মুস্তাফিজই দলকে এনে দেন মহামূল্যবান ব্রেকথ্রু। প্রথম ওভারে ১৮ রান দেওয়ার পর দ্বিতীয় ওভারে তার শিকার হয়ে ৩৫ বলে ৫২ রান করে সাজঘরে ফেরেন ডেভিড ওয়ার্নার, মাথিশা পাথিরানার দুর্দান্ত এক ক্যাচে।

ওয়ার্নারের পর অর্ধশতক তুলে নেন দিল্লীর অধিনায়ক রিশভ পান্টও। ৩২ বলে ৫১ রান আসে তার ব্যাট থেকে। এছাড়া পৃথ্বী ২৭ বলে করেন ৪৩ রান। প্রথম ওভারের মতো স্লগ ওভারেও খরুচে ছিলেন মুস্তাফিজ। এদিন ৪ ওভার বল করে ৪৭ রান খরচ করে একটি উইকেটই পান তিনি। শেষ দুই ওভারে খরচ করেন যথাক্রমে ১৪ ও ১২ রান। মাথিশা পাথিরানা শিকার করেন তিনটি উইকেট।

জবাব দিতে নেমে শুরুতেই বিপাকে পড়ে যায় চেন্নাই। স্কোরবোর্ডে ৭ রান জড়ো করতেই সাজঘরে ফেরেন দুই ওপেনার গাইকোয়াদ ও রাচিন রবীন্দ্র। দ্বিতীয় উইকেটে দলের হাল ধরার চেষ্টা করেন আজিঙ্কা রাহানে ও ড্যারিল মিচেল। তবে রাহানে ৩০ বলে ৪৫ ও মিচেল ২৬ বলে ৩৪ রান করে বিদায় নিলে খেই হারিয়ে ফেলে চেন্নাই। ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার শিভম দুবে চেষ্টা করলেও কারও যোগ্য সঙ্গ না পাওয়ায় শেষপর্যন্ত হার নিয়েই মাঠ ছাড়ে চেন্নাই।

যদিও শেষদিকে ধোনির ব্যাটিং বিনোদিত করেছে চেন্নাইয়ের সমর্থকদের। ৩০৭ দিন পর মাঠে নেমে ১৬ বলে ৩৭ রানের ক্যামিও খেলে অপরাজিত থাকেন ধোনি। ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৭১ রান জড়ো করে চেন্নাই, দিল্লী পায় ২০ রানের জয়।